নিরাপত্তাহীনতার আশংকায় ঈশ্বরদী পৌর মেয়রের সংবাদ সম্মেলন

ঈশ্বরদী পৌর যুবলীগের সভাপতি আলাউদ্দিন বিপ্লবের দায়ের করা ‘মাছ লুটে’র বহুল আলোচিত মামলায় জামিন নিয়ে মেয়র মিন্টু ঈশ্বরদীতে এলে তাকে পৌরসভায় যেতে বাধা দিতে পোষ্ট অফিস মোড়ে বিক্ষোভ মিছিল করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন মেয়র। খবর পেয়ে তিনি পুলিশী প্রহরায় অফিসে যান বলেও অভিযোগ করেন তিনি। অফিসে গিয়ে তাৎক্ষনিকভাবে সংবাদ সম্মেলন করে তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন বলে অভিযোগ করেন।

 

হাইকোর্ট হতে জামিনপ্রাপ্ত ঈশ্বরদী পৌরসভার মেয়র ও ঈশ্বরদী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ মিন্টু তার নিজের জীবননাশ এবং পৌর পরিষদের নিরাপত্তাহীনতার আশংকা জানিয়ে এই সংবাদ সম্মেলন করেন।

গত বুধবার দুপুরে পৌরসভার মিলনায়তনে এক জণাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে মেয়র মিন্টু বলেন, ‘রেলওয়ে থেকে লীজ নিয়ে এবং পুঁজি খাটিয়ে যারা মাছ চাষ করছিল, দূর্বৃত্তরা তাদের পুকুরের মাছ লুট করে আমাকে প্রধান আসামী করে ঈশ্বরদী থানায় মিথ্যা মাছ লুটের মামলা দায়ের করে। সেই মামলায় হাইকোর্ট হতে জামিন নিয়ে যখন প্রথম পৌরসভায় আসব, সেসময় আমাকে কেউ কেউ ফোন করে জানান, পৌরসভার সামনে এবং পোষ্ট অফিস মোড়ে কিছু উচ্ছৃংখল যুবলীগ কর্মী ও দুর্বৃত্তরা কারো কারো পরামর্শে আমাকে উদ্দেশ্য করে গালিগালাজ করছে। আমি যাতে পৌরসভায় না ঢুকতে পারি সেজন্য তারা পৌরসভার প্রবেশ পথে অবস্থান নিয়েছে। মেয়র জানান, এসময় আমি প্রশাসনের স্মরণাপন্ন হয়ে পৌরসভার অফিসে আসি। এসময় আমার সহধর্মীনি জেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মাহজেবিন শিরিন পিয়া ঘটনার ভয়াবহতায় আমার সাথে পৌরসভায় আসেন। ঘটনার আকষ্মিকতা ও ভয়াবহতায় আমি তাৎক্ষনিকভাবে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেছি। পৌরসভার উন্নয়নের গতিধারাকে যারা বাধাগ্রস্থ করতে চায় তাদের আইনের আওতায় নেয়ার জন্য তিনি দাবী জানান।

তিনি আরো বলেন, ঈশ্বরদী পৌরসভার উন্নয়নকে বেগমান করার জন্য আমি সাংবাদপত্রের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্মরণাপন্ন হচ্ছি। এসময় তার স্ত্রী ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফের মেয়ে মাহজেবিন শিরিন পিয়া ছাড়াও পৌরসভার কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ সম্মেলনের আগে বিভিন্ন পর্যায়ের লোকজন এবং পৌরসভার কাউন্সিলররা মেয়রকে ফুল দিয়ে বরণ করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

*